Hoop StoryHoop Viral

‘আমার বউ ফেরত চাই’, ভালোবাসার টানে শ্বশুরবাড়ির সামনে ধর্নায় যুবক

যাকে বলে ভালোবাসার জয় জয়কার। এতদিন ধরে বউ-বাচ্চা যেহেতু শ্বশুর বাড়িতে আছে। তাই শ্বশুর বাড়ির সামনে ধরনায় বসলে যুবক বউ বাচ্চাকে তার ফেরত চাই। এমন অস্বাভাবিক ঘটনাটি ঘটেছে মালবাজারের ক্রান্তির কাঠামবাড়ী এলাকাতে। যদিও এই ঘটনাগুলো অস্বাভাবিক নয়, আমরা বেশ কয়েক বছর ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে দেখতে পাচ্ছি। এই ভাবেই নানা কারণে বিশেষত প্রেমের কারণে যুবক-যুবতীদের ধর্নায় বসতে।

এর বয়স দেড় বছর ছোট মেয়েকে নিয়ে বউ চলে এসেছে বাপের বাড়িতে। আর সেই দুঃখে কাতর হয়ে যুবক একেবারে শ্বশুর বাড়ির সামনে বউ-বাচ্চাকে ফিরে পেতে চাই, এই দাবিতে ধরনায় বসে আছে। হরিদাস জানায়, তার স্ত্রী শ্বশুরবাড়িতে মানিয়ে-গুছিয়ে সংসার করতে পারেনি, তাই সে বাপের বাড়ীতে চলে এসেছে। আবার স্ত্রীর উল্টো অভিযোগ স্বামী নাকি তাকে মারধোর করে।

তবে শুধুমাত্র বউকে ফেরত পাওয়ার জন্য ধরনায় বসেছেন। এমনই নয়, বউকে ফেরত চাই, এমন পোস্ট সাঁটিয়েছেন, আর হাতে নিয়েছেন মেয়ের ছবি। যুবকের নাম হরিদাস মণ্ডল চার বছর আগে বিয়ে করেছিলেন। জ্যোৎস্না মণ্ডল কে। তবে চার বছর পর সম্পর্ক এতটাই তিক্ততার পর্যায়ে পড়ে গেছে যে জ্যোৎস্না মণ্ডল পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন সে আর কোনভাবেই হরিদাসের সঙ্গে সংসার করবে না। কিন্তু এদিকে হরিদাস আরো নাছোড়বান্দা।

বউ আর সন্তানকে না নিয়ে কিছুতেই সেই জায়গা থেকে নড়বে না। তবে সে বলেছেন, যদি না ফিরে যায় বউ, সন্তান, তাহলে সে মরতেও রাজি আছে। এ রকম ঘটনা দেখতে হাজির হয়েছেন পাড়ার লোকেরা। যদিও হরিদাস কিন্তু নাছোড়বান্দা। সে মাঝরাত পর্যন্ত বউ ও সন্তানকে নিয়ে যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করেছিল। পরবর্তীকালে পুলিশ ও স্থানীয় পঞ্চায়েতের আশ্বাসে হরিদাস তার ধরনা তুলে নেয়।

‘আমার বউ ফেরত চাই’, ভালোবাসার টানে শ্বশুরবাড়ির সামনে ধর্নায় যুবক- HoopHaap

Related Articles

Back to top button