Hoop PlusTollywood

Abhishek Chatterjee: ৫৭ বছরেই থমকে গেল জীবন, প্রিয় ‘মিঠু’দার স্মৃতিচারণায় উদ্বেল টলিউডের সকলে

গতকাল মধ্যরাতে আকস্মিক প্রয়াণে ঘটে কিংবদন্তি অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের। মাত্র ৫৭ বছর বয়সেই তিনি চির ঘুমের দেশে পাড়ি দিলেন। বুধবার সকালেও তিনি সুস্থ ছিলেন। শুটিংয়েও উপস্থিত হয়েছিলেন। কিন্তু সেখানেই আচমকা অসুস্থ বোধ করেন তিনি। বাড়ি চলে আসেন। ডাক্তাররা তাকে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দিলে তিনি বাড়িতেই থাকতে চান। কিন্তু ভাগ্যের পরিহাসে শেষ রক্ষা আর হল না। নিজের বাড়িতেই রাত একটা নাগাদ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

তার এই আকস্মিক প্রয়াণে ভেঙে পড়েছেন টলিউডের সকল কলাকুশলীরা। দীর্ঘ অভিনয় জীবনে এই ইন্ডাস্ট্রিতে তার তৈরি হয়েছে বহু শুভাকাঙ্ক্ষী, সতীর্থ এবং বন্ধুবান্ধব। আজ অভিনেতার মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ সবাই। প্রতিক্রিয়া জানানোর ভাষাও হারিয়েছেন অনেকে। তবুও কয়েকজন শিল্পী অভিনেতার প্রতি স্মৃতিচারণা করে শ্রদ্ধার্ঘ্য জানিয়েছেন।

অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়কে শেষ দেখা গিয়েছিল স্টার জলসার অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক খড়কুটোতে। সেখানে তিনি নায়িকা গুনগুন অর্থাৎ তৃনা সাহার বাবার ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন। অনস্ক্রিন জামাই সৌজন্যে অর্থাৎ কৌশিক রায় অভিনেতার মৃত্যুতে চমকে গিয়েছেন। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিনেতার সঙ্গে কাটানো খড়কুটোর সেটের কিছু ছবি ভাগ করে নেন। ছবিগুলো পোস্ট করে তিনি ক্যাপশনে লেখেন, “তোমার সঙ্গে কাটানো সব মুহূর্তগুলো মনে থাকবে।”

অভিনেত্রী মনামী ঘোষ ফেসবুক পোস্ট করে লেখেন,“এখনও ভাবতে পারছিনা কি করে হল। কিছু বলার নেই অভিষেক দা।” টলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা অঙ্কুশ সোশ্যাল মিডিয়ায় পোষ্টের মাধ্যমে অভিনেতাকে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। অঙ্কুশ লেখেন,“তোমার মত মানুষ খুব কম দেখেছি। তোমার মত অভিনেতা খুব কম দেখেছি। কালিম্পং-এ তোমার সঙ্গে কাটানো সেই মুহূর্তগুলো আজও মনে পড়ে। খুব মিস করবো তোমায় অভিষেক দা। সেই আদর গুলো খুব মিস করব। যেখানেই থেকো ভালো থেকো।”

শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় এবং অভিষেক চট্টোপাধ্যায় প্রায় সমবয়সী দুজন অভিনেতা। ফেসবুক পোস্টে শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় লেখেন,“ কিছু বলার নেই মিঠুদা। যেখানেই থাকো ভালো থেকো।”

দীর্ঘদিনের বন্ধুকে হারিয়ে অভিনেত্রী লাবণী সরকার শোকস্তব্ধ। একটি সংবাদমাধ্যমকে তিনি প্রতিক্রিয়ায় জানান,“ও আমার কাছে বন্ধু থেকে বড় একজন ছিল। আমার পরিবারের মতো ছিল ও। এমন দিন আসবে ভাবি নি কোনদিনও। আমি আর ও প্রায় একই বয়সের। কি থেকে যে কি হয়ে গেল ভাবতে পারছিনা। সবসময় এক্সারসাইজের মধ্যে ফিট থাকার চেষ্টা করত। এই কঠিন সময়ে ওর পরিবার এবং স্ত্রী এর পাশে দাঁড়ানোটা কর্তব্য আমার।”

অন্যদিকে অভিনেত্রী ইন্দ্রানী হালদার প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন। ধরা গলায় তিনি বলেন,“আমি ইন্দ্রানী দত্তের থেকে খবরটা পাই। অনেক ছোটবেলা থেকে সম্পর্ক ওর সাথে আমার। আমি এই খবর মানতে পারছিনা। মিঠুকে সবসময় বলতাম তুই একটু রোগা হ। কি চেহারা ছিল তোর! শ্রীময়ীর শুটিংয়ের সময় ওর সাথে প্রায় দেখা হত।”

আজ সকালে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও টুইটারে তার শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। তিনি লেখেন,“আমাদের তরুণ অভিনেতা অভিষেক চ্যাটার্জির অকাল প্রয়াণে দুঃখিত। অভিষেক তার অভিনয়ে প্রতিভাবান এবং বহুমুখী ছিলেন এবং আমরা তাকে মিস করব। এটা টিভি সিরিয়াল এবং আমাদের চলচ্চিত্র শিল্পের জন্য একটি বড় ক্ষতি। তার পরিবার ও বন্ধুদের প্রতি আমার সমবেদনা রইল।”