কুমারী বয়সে এক আশ্রম গুরু সুযোগ নিতে চেয়েছিলেন, বিস্ফোরক মন্তব্য জনপ্রিয় অভিনেত্রীর

রক্ষক যখন ভক্ষক! হ্যা যখন রক্ষাকর্তাই নিজের ক্ষমতা অন্যদের ওপর চাপিয়ে দেয় তখন সাধারণ মানুষের কি ক্ষতি হয় তা নিয়ে আশ্রম ২। এক সাধুবাবার ওপর চোখ বন্ধ করা যে এক একটা পরিবারের চরম ক্ষতি হয় তাই দেখালো আশ্রম ২।

অনুপ্রিয়া গোয়েঙ্কা। আশ্রম ২ ওয়েবসিরিজে নিজের অভিনয়ে মুগ্ধ করেছেন দর্শকমন। নিজের ওয়েব সিরিজ ‘আশ্রম’ নিয়ে এখন আলোচনার কেন্দ্রে আছেন তিনি। পরিচালক প্রকাশ ঝা-র ওই ওয়েব সিরিজে তাঁর অভিনয় সবার প্রশংসা নিজের ঝুলিতে দখল করে নিয়েছেন। এর মধ্যে অনুপ্রিয়া খবরের শিরোনামে। তিনি একটি সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন পুরোনো দিনের কথা। তিনি যখন ১৮ বছর বয়সী ছিলেন তখন এক আশ্রমের এক বাবার খপ্পরে পড়েছিলেন। আর সেই তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা তিনি সবাইকে জানালেন। সেই ঘটনা তিনি সারাজীবন মনে রাখবেন। কোনোদিনই ভুলতে পারবেন না।

অনুপ্রিয়া জানালেন, তাঁর বাবা বরাবরই বিভিন্ন সাধুসন্তনীদের বিশ্বাস করতেন। তাঁদের কার্যকলাপ নিয়ে বাবার ছিক অগাধ বিশ্বাস। পরিবারের সকল সদস্য এই সাধুদের হিসেবে তাঁরাও বিশ্বাসে ভর করে জীবনে চলতে শুরু করেন। আর এই বিশ্বাসের ফল তাঁর পুরো পরিবারকে একবার ভুগতে হয় বলে জানান অনুপ্রিয়া।

যখন অনুপ্রিয়া সদ্য ১৮ তে পা দিয়েছেন তাঁর সেই সময় এক সাধুবাবাকে বাড়িতে নিয়ে আসেন তাঁর বাবা। ওই সময় ওই সাধুর উপর ভরসা করতে শুরু করেন পুরো পরিবার। বাড়ির সকল সদস্যদের মতো তিনিও সাধুবাবাকে শ্রদ্ধা, সম্মান ও বিশ্বাস করা শুরু করলেন। এর পর তাঁর ধারণা পাল্টায় সাধুর ব্যপারে। আস্তে আস্তে বিশ্বাস ভেঙে যায়। ওই সাধুবাবা তাঁর সঙ্গে আলটপকা ব্যবহার শুরু করেন। সময় থাকতে থাকতে তিনি সাধুর ব্যবহারের তীব্র প্রতিবাদ করেন ও শেষ পর্যন্ত রক্ষা পান। তারপর এই ঘটনা থেকেই ওই সাধুবাবাদের কাছ থেকে তিনি দূরে সরে থাকতে শুরু করেন বলেও জানান। এর পর হয়তো আর অনুপ্রিয়া কোনো সাধুকে বিশ্বাস ও করতে পারবেননা।