Bengali SerialHoop Plus

Rishi Kaushik: দর্শকদের পছন্দেই সাংসারিক গল্পের সিরিয়াল চলছে, মুখ খুললেন ঋষি কৌশিক

এই মুহূর্তে ‘সোনা রোদের গান’-এ অভিনয় করছেন ঋষি কৌশিক (Rishi Kaushik)। ডঃ অনুভবের চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। শুরুটা হয়েছিল 2005 সালে ‘একদিন প্রতিদিন’ সিরিয়ালের মাধ্যমে। সতেরো বছর হয়ে গেল, ইন্ডাস্ট্রিতে রয়েছেন ঋষি। এখনও অবধি যতগুলি প্রজেক্টে অভিনয় করেছেন, প্রায় প্রতিটাই হিট। ‘সোনা রোদের গান’-এর প্রযোজক অর্ক গঙ্গোপাধ্যায় (Arka Ganguly)-র সঙ্গে ঋষির বহুদিনের আলাপ। অর্ক প্রথমে ‘সোনা রোদের গান’-এর হিন্দি ভার্সন ‘থোড়া সা বাদল থোড়া সা পানি’-র জন্য ঋষিকে প্রস্তাব দিয়েছিলেন। কিন্তু সেই সময় দু-তিন দিনের মধ্যে সব গুছিয়ে মুম্বই শিফট করার মতো পরিস্থিতি ছিল না ঋষির। এরপরেই বাংলা ভার্সন ‘সোনা রোদের গান’-এর প্রস্তাব আসে ঋষির কাছে।

সেই সময় মুম্বই না গেলেও ভালো প্রস্তাব পেলে নিশ্চয়ই মুম্বই যাবেন বলে জানিয়েছেন ঋষি। অপরদিকে সিরিয়ালের পাশাপাশি কয়েকদিন আগেই শেষ করেছেন ‘শ্বেতকালী’ ওয়েব সিরিজের শুটিং। আপাতত সিরিয়ালেই মন দিয়েছেন তিনি। তবে ঋষি মনে করেন, যে প্রজন্ম টিভি দেখছেন, তাঁরা টিভিই দেখবেন। ওটিটিতে সাবস্ক্রাইব করার সঙ্গে তাঁরা এখনও অভ্যস্ত নন। কিন্তু একটা-দুটো সিরিয়াল দেখেন, এমন মানুষ কখনও টিভির কোর দর্শক নন। মূল দর্শকরা কখনও টিভি ছাড়বেন না। তাছাড়া ওয়েব সিরিজ একটা সময়ের পর শেষ হয়ে যায়। কিন্তু সিরিয়াল নিয়মিত। ফলে বিনোদন জগতে টিভির পরিবর্ত নেই বলে মনে করেন ঋষি।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Rishi Kaushik (@rishikaushikofficial)

তবে পরবর্তী প্রজন্ম দর্শকাসনে এলে হয়তো টেলিভিশনে বদল আসবে বলে মনে করেন ঋষি। তিনি জানালেন, দর্শক দেখছেন বলেই সাংসারিক ড্রামার মতো কন্টেন্ট তৈরি হচ্ছে। একটি সিরিয়াল থেকে হাজার মানুষের সংসার চলে। এমনকি চ্যানেল কর্তৃপক্ষও জানেন, কোন কন্টেন্ট টিআরপি দেবে। উদাহরণ হিসাবে ‘পুষ্পা’-র কথা বললেন ঋষি। তাঁর মতে, ‘পুষ্পা’ দক্ষিণী ফিল্ম বলেই দর্শক দেখছেন। কিন্তু বলিউডে এই ধরনের ফিল্ম বানালে নাও চলতে পারে। ওটিটি দেখার সময় সকলে মনে করেন, কাহিনী রহস্যময় হবে। কিন্তু টিভি দেখার সময় সেই মাইন্ডসেট থাকে না। তবে বর্তমানে টিভির দর্শক বদলে গিয়েছে, পরিস্থিতি অনুসারে বদলেছে কাহিনীও।

তবে ঋষি বেড়াতে যেতে ভালোবাসেন। আগে যখন টানা শুটিং করতেন, তখন প্রযোজককে আগেই বলে রাখতেন, বছরে অন্তত দশ দিনের একটা ছুটি লাগবে। আগে থেকে সিরিয়ালের ব্যাঙ্কিং করে রেখে বেরিয়ে পড়তেন ঋষি। তবে বাইক ট্রিপে তিনি ছবি ও ভিডিও তোলেন না। এছাড়াও ঘোড়সওয়ারি করতে ভালোবাসেন ঋষি। তাঁর ভালো লাগে টার্গেট শুট করতে, শরীরচর্চা করতে। এতরকম অ্যাক্টিভিটির মধ্যে তিনি থাকেন বলেই লকডাউন তাঁর উপর প্রভাব ফেলতে পারেনি।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Rishi Kaushik (@rishikaushikofficial)