গরমে যেভাবে স্নান করলে শরীর থাকবে ফ্রেশ ও চনমনে

জলের মধ্যে ফুলের পাপড়ি মিশিয়ে স্নান করার রীতি প্রাচীনকাল থেকেই রয়েছে। বিশেষত প্রাচীনকালে রানীমারা তাদের স্নানের জলের মধ্যে নানান সুগন্ধি ফুলের পাপড়ি মিশিয়ে স্নান করতেন। তবে আপনি যদি চান আপনিও বাড়িতে ঘরোয়া পদ্ধতি ব্যবহার করেই গরমকালে নিজের শরীরে ফুরফুরে তাজা ভাব আনতে পারেন ফুলের পাপড়ির জলে স্নান করে। এর জন্য আপনাকে বেশি টাকা খরচ করতে হবে না। আপনার বাগানের যদি এই কয়েকটা ফুলের গাছ থাকে তাহলেই চলবে।

গোলাপ ফুল
কম বেশি সবার বাড়িতেই গোলাপ গাছ থাকে। আর কারুর যদি গোলাপ গাছ বাড়িতে না থাকে তাহলে যেকোনো ফুলের দোকান থেকে গোলাপ ফুল কিনে আনতে পারেন গোলাপ ফুলের পাপড়ির রোদে শুকিয়ে রেখে অনেকদিন রেখে দিতে পারেন। কিন্তু যাদের বাড়িতে গাছ আছে তারা প্রতিদিন টাটকা গোলাপ ফুলের পাপড়ি ব্যবহার করতে পারেন স্নানের জলে সামান্য জলের মধ্যে কয়েকটা গোলাপ ফুলের পাপড়ি ভালো করে ফুটিয়ে নিয়ে সেই জল থেকে সেই জল স্নানের জলের সঙ্গে মিশিয়ে প্রদান করেন তাহলে আলাদা করে পারফিউম’ মাখা দরকার পড়বে না।

বেলফুল
গরমকালে বেলফুল অতি সুগন্ধি একটি ফুল। সব বাড়িতেই মোটামুটি হয়ে থাকে। আপনার স্নানের জলের মধ্যে যদি কয়েকটা বেলফুল অন্তত তিন থেকে চার ঘণ্টা রেখে দিতে পারেন তাহলে স্নানের জলে সেই ফুলের গন্ধ চলে যায়। আর এই জল যদি আপনি স্নানের কাজে ব্যবহার করতে পারেন তো বেল ফুলের গন্ধে আপনার শরীর মন ফুরফুরে হয়ে উঠবে।

গন্ধরাজ ফুল
বেল ফুলের মত ঐ একই পদ্ধতিতে স্নানের জলের মধ্যে গন্ধরাজ ফুল বেশ কয়েকটা নিয়ে যদি কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখা যায় আর সেই জলে যদি স্নান করা যায় তাহলেই আপনার মন এবং শরীর দুইই গন্ধে ফুরফুর করবে।

এই তিনটি ফুলের মধ্যে যেকোনো একটি ফুল যদি প্রতিদিন আপনি স্নানের জলে ব্যবহার করতে পারেন অথবা আপনার বাড়িতে যদি এই তিনটে ফুলের গাছ থাকে তাহলে গোলাপজল আপনার ত্বককে সুন্দর, মখমলের, টানটান করতে সাহায্য করবে। ফুলের মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আপনার যৌবন ধরে রাখতে সাহায্য করবে।