এই সপ্তাহে সেরার দৌড়ে এগিয়ে গেল কোন চ্যানেলের কোন ধারাবাহিক!

প্রতিদিন সন্ধ্যা মানেই ঠাকুরকে সন্ধ্যে দিয়ে মা কাকিমারা হাতে চায়ের কাপ আর স্ন্যাক্স নিয়ে বসে পড়েন টেলিভিশনের পর্দায় ধারাবাহিক দেখার নেশায়৷ এই নেশা টাকা পয়সার নেশা নয়। এই নেশা হল অভিনেতা অভিনেত্রীদের অভিনয় দেখার নেশা। এ এদের অভিনয়ের কামাল। এই অভিনেতা অভিনেত্রী নিজেদের অভিনয় দিয়ে দর্শকমহল পুরোপুরি ঘায়েল করে দিয়েছে।

এবার আসা যাক অন্যদিকে। বাংলা ধারাবাহিক মানেই দুই চ্যানের রেষারেষি। স্টার জলসা আর জি বাংলার রেষারেষি আজকের নয়, বহুদিনের। কোন চ্যানেল কাকে কতটা টেক্কা দিতে পারলো তা টিআরপির দিক দিয়ে বোঝা যায়। কোন চ্যানেল অন্যান্যদের থেকে টিআরপির দিক থেকে এগিয়ে সেটা জানার জন্য দর্শকরাও উন্মুখ হয়ে থাকেন। প্রতি সপ্তাহের মতো এই সপ্তাহেও টিআরপি রেটিংয়ে সেরা ধারাবাহিকগুলির নাম প্রকাশ হয়েছে।

সপ্তাহজুড়ে দর্শকদের বিচারের নিরিখে আর চিত্রনাট্যের জেরে হাড্ডাহাড্ডি জোড়দার লড়াইতে চললো জি বাংলা এবং স্টার জলসার ধারাবাহিকগুলির মধ্যে। আর এবার এই সপ্তাহে পাল্টে গেল টিআরপির হিসেব অনেকটাই। জিতে গেল স্টার জলসার ‘মোহর’ সিরিয়াল আবার।

শঙ্খ স্যার অবশেষে মন্দিরে ফিরে এসে নিজের বিয়ে করা স্ত্রীকে চমকে দিলেন। শঙ্খ বলে শ্রেষ্ঠা কে বিয়ে করবে। অন্যদিকে বাড়ির সবাইকে স্পষ্ট জানিয়ে দেয় সে মোহরকেই বিয়ে করবে। বিয়ের প্রস্তুতি চলছে। অন্যদিকে মোহর কাঁদলেও মুখে কোনো রা কাটেনা। এদিকে শঙ্খ চুটিয়ে মোহরকে রাগানোর জন্য নানান খুনসুটি শুরু করে দিয়েছেন। এদিকে মোহরের বাবা মা চলে এসেছে মেয়ের বিয়েতে। আর মোহর ও কাঁদতে কাঁদতে প্রাক্তন স্বামীর বিয়ে দেখতে চলে এসেছেন। মোহর ধারাবাহিক এখন জমে উঠেছে তাই এই সপ্তাহের রেটিং ছাড়িয়ে প্রথম স্থানে উঠে এল। এ সপ্তাহের রেটিং ১০.৭।

আগের সপ্তাহে প্রথম স্থানে ছিল ‘রানী রাসমনি’। এবারেও এটিও পিছিয়ে গেল দ্বিতীয় স্থানে। রাসমনি সিরিয়ালে এবার রামকৃষ্ণের স্ত্রী মা সারদা’র প্রবেশ ঘটতে চলেছে। আর তাতেই রেটিং গিয়ে দাঁড়ালো ১০.৪। আর এবারেও তৃতীয় স্থানে জায়গা করে নিল স্টার জলসার ‘খড়কুটো’ ধারাবাহিক। গুনগুন আর সৌজন্যের খুনসুটিতে রেটিং বেড়ে হল ১০.৪। আর চতুর্থ স্থানে এবারে যৌথ স্থান দখল করলো কৃষ্ণকলির নিখিল ও শ্যামা এবং সাঁঝবাতির আর্য এবং চারু, আজকের রেটিং ৯.৭। এবং পঞ্চম স্থানে পিছিয়ে গেল শ্রীময়ী আর রোহিত সেন। রেটিং ৮.৯।

অন্যদিকে এক ধাক্কায় ষষ্ঠ স্থানে আগের মতো থাকলো যমুনা ঢাকি। আর সপ্তম স্থানে এগিয়ে গেলো ভাগ্যলক্ষী। অষ্টম স্থানে আলো ছায়া, নবম স্থানে পিছিয়ে গেল ফের কি করে বলবো তোমায় এবং দশম স্থানে জায়গা করে নিল এক মাসের মধ্যে জীবনসাথী ধারাবাহিক। রেটিং যথাক্রমে ৮.৬,৭.৬,৭.০,৬.৪,৬.২।

স্টার জলসার তিতলি-৬.১
প্রথমা কাদম্বিনী – ৬.০
মহাপীঠ তারাপীঠ – ৫.৯
কোড়াপাখি-৫.২
জি বাংলার ফিরকি – ৫.১
ক্ষীরের পুতুল-৪.৯
সৌদামিনীর সংসার -৩.৮
ওগো নিরুপমা-৩.৩
পান্ডব গোয়েন্দা-৩.১
কে আপন কে পর – ২.৬
ধ্রুবতারা – ২.১
গোয়েন্দা গিন্নি – ২.০।

এই সপ্তাহের শঙ্খ স্যার আর মোহরের রসায়ন টিআরপির টেবিলে এগিয়ে এলেও রানী রাসমনিকে বেশ পিছনে ফেলে দিল স্টার জলসার গুনগুন।লকডাউনের পর মাত্র কয়েক সপ্তাহে টিআরপির দ্বিতীয় তৃতীয় স্থানে আসা খুব সহজ নয়।খুব বেশি অদলবদল নেই এবারের টিআরপি তালিকায়। মোটামুটি যে ধারাবাহিকগুলি সেরা দশে ছিল বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে, এই সপ্তাহেও তারাই স্থান অক্ষুণ্ন রেখেছে। অন্যদিকে স্টার জলসার নতুন ধারাবাহিক ‘ভাগ্যলক্ষ্মী’ এবারে একটু পিছিয়ে গেল। শেষদিন পর্যন্ত সেরা দশ তালিকায় থাকতে প্রস্তুত এই ধারাবাহিক। অন্যদিকে জীবনসাথী ধারাবাহিক মাত্র ১ মাসের মধ্যে সেরা দশে নিজের জায়গা দখল করে নিল।

অন্যদিকে অন্যদিকে আবীর চ্যাটার্জি সারেগামাপা সঞ্চালনায় টিআরপিতে প্রথম স্থানেই জায়গা করে নিয়েছে। আর দ্বিতীয় স্থানে বাঙালীর প্রিয় দিদি নাম্বার ওয়ান। অন্যদিকে মীরের হাসির ভ্যাকসিন মীরাক্কেল তৃতীয় স্থানে রয়েছে, আর এই তিন জনপ্রিয় রিয়ালিটি শোয়ের রেটিং যথাক্রমে ৭.৮,৫.০,৪.০।