Hoop Life

Skin Care: শুধু মুখ নয়, সারা শরীরের কালো দাগ দূর করার টিপস

কালো দাগ দূর করার আগে সবার আগে আপনাকে যেটা জানতে হবে, আপনার শরীরে কালো দাগ কেন হয়? এই কালো দাগ হওয়ার কয়েকটি কারণ আছে। প্রথম কথা শরীরের যে অংশ উন্মুক্ত অবস্থায় থাকে, সূর্যের আলো সরাসরি এখানে এসে পড়ার কারণে দীর্ঘদিন যদি এমনটা হতে থাকে, তাহলে ত্বকের ওপরে একটা ট্যান পড়ে যায়, কিন্তু অনেক সময় শরীরের ভেতরের নানান রকম সমস্যার জন্য কিন্তু আপনার গলা ঘাড়, পিঠ, কনুই,হাঁটু অথবা আন্ডার আমস কালো হতে পারে। শুধুমাত্র নোংরা বা ট্যানের জন্য হয় না, তাই সবার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিন থাইরয়েড যাদের থাকে তাদের এইটি কালো হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি পরিমাণে থাকে।

তবে মরা কোষ এর জন্য অনেক সময় কালো দাগ হয়ে থাকে। যাদের থাইরয়েডের কোন সমস্যা নেই বা অতিরিক্ত যদি ওবিসিটি থাকে মানে যারা অতিরিক্ত মোটা হয়, সে রকম সমস্যা যদি না থাকে তাহলে অবশ্যই বাড়িতে কয়েকটি ছোট খাট টিপস ফলো করতে পারেন, তাহলে খুব সহজেই শরীরের কালো দাগ, একেবারে নিমেষের মধ্যে দূর হয়ে যাবে।

প্রথমত, স্নান করার সময় সামান্য গরম জল এর মধ্যে একটি ছোট গামছা বা ছোট তোয়ালে ভিজিয়ে নিয়ে আপনি যে জায়গাটা ফর্সা করতে চাইছেন সে জায়গায় ভালো করে ঘষে ঘষে পরিষ্কার করে নিন। এতে সেই জায়গার মরা কোষ দূর হয়ে যাবে এবং লোমকূপ খুলে যাবে।

তারপর একটি প্যাক আপনাকে বানাতে হবে। এই প্যাকটি বানাতে আপনার প্রয়োজন হবে। এক চামচ চালের গুঁড়া, ১ চামচ কফি পাউডার প্রয়োজনমতো কাঁচা দুধ, ১ চামচ কমলালেবুর খোসা গুঁড়ো যদি না পান, তাহলে পাতিলেবুর রস ব্যবহার করতে পারেন ভাল করে মিশিয়ে নিন এই মিশ্রণটি ওই কালো জায়গায় অন্তত পাঁচ মিনিট ধরে ঘষতে হবে। তারপর ১৫ মিনিট রেখে দিয়ে ঠাণ্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন।

এই রকম ভাবে আপনাকে পরপর ১০ দিন করতে হবে। তাহলেই দেখবেন ত্বক অনেক পরিষ্কার হয়েছে, তবে যাদের তৈলাক্ত ত্বক তাদের এরপরে কিছু লাগানোর প্রয়োজন হবেনা। কিন্তু যাদের শুষ্ক ত্বক তারা এই প্যাকটি লাগানোর পরে অর্থাৎ স্নান করার পরে অবশ্যই একটা কোন ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নেবেন, আপনার বাড়িতেও মশ্চারাইজার বানিয়ে ফেলতে পারেন। এর জন্য প্রয়োজন হবে দু চামচ দুধ, তার সঙ্গে এক চামচ গ্লিসারিন ভালো করে মিশিয়ে নিন এই মিশ্রণটি ময়েশ্চারাইজার হিসেবে বেশ খানিকক্ষণ ত্বকের ওপরে লাগিয়ে রাখুন। তারপর ঠাণ্ডা জলে ধুয়ে ফেলবেন।

Related Articles

Back to top button