Hoop PlusReality show

Ismart Jodi: মা হতে না পারায় আত্মীয়-স্বজনের তুমুল কটাক্ষ, মুখ খুললেন রূপঙ্করের স্ত্রী

স্টার জলসার জনপ্রিয় শো ‘ইস্মার্ট জোড়ি’। সেখানেই সামনে এসেছে রূপঙ্কর বাগচী (Rupankar Bagchi) ও তাঁর স্ত্রী চৈতালী (Chaitali) জানিয়েছিলেন, তাঁরা কন্যাসন্তান দত্তক নিয়েছেন। দুবার সন্তান ধারণের পরেও তাদের হারিয়ে ফেলার কষ্টের কথা বলতে গিয়ে শোয়ের সঞ্চালক জিৎ (Jeet)-এর সামনেই কেঁদে ফেলেছিলেন চৈতালী।

রূপঙ্কর ও চৈতালী দত্তক নেওয়ার কথা আনুষ্ঠানিক ভাবে ঘোষণা করলেও খুব কম সংখ্যক মানুষ তা জানতেন। চৈতালী জানিয়েছেন, তিনি পাগলের মতো হয়ে গিয়েছিলেন। মা হতে চেয়েও পারছিলেন না। চৈতালীদের মতো নারীরা এই যন্ত্রণার কথা বুঝতে পারবেন। শেষ অবধি তিনি সিদ্ধান্ত নেন, আর সন্তান ধারণ নয়। দত্তক নেবেন। চৈতালী তাঁর এই সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলেন শ্বশুরমশাই ও শাশুড়িকে। তার পরেই মহুল (Mahul)-কে নিয়ে এসেছিলেন রূপঙ্কর ও চৈতালী। তারপর কেটে গেছে সতের বছর। তাঁদের স্নেহের ছায়ায় বেড়ে উঠেছে মহুল।

রূপঙ্কর ও চৈতালী পরিবারকে পাশে পেয়েছেন। তাই আত্মীয়-স্বজনের কটাক্ষ পাত্তা দেননি। অনেকেই বলেছেন, রূপঙ্করের নিজের সন্তান হলে সেই সন্তান আরও গুণী হত। এই ধরনের কথা হেসে উড়িয়ে দিয়েছেন রূপঙ্কর ও চৈতালী। মহুলকে স্বাভাবিক ভাবেই বেড়ে উঠতে দিয়েছেন তাঁরা। মহুলের জন্য নিজের কাজ, অভিনয়ের ইচ্ছাকে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত দূরে সরিয়ে রেখেছিলেন চৈতালী। একসময় মহুল জেনেছে, সে তার মায়ের গর্ভজাত কন্যাসন্তান নয়। এটা শোনার পর প্রচন্ড ভেঙে পড়েছিল মহুল। চৈতালীকে ধরে মারত। কিন্তু তারপর তাঁকে জড়িয়ে ধরেই কাঁদত। ধীরে ধীরে এই কষ্ট থেকে বেরিয়ে এসেছে মহুল।

তবে ‘ইস্মার্ট জোড়ি’-র সুন্দর উপস্থাপনার কারণে চৈতালী সেদিনের ঘটনা বলতে পেরে হালকা হয়েছেন। তাঁর অনুমতি নিয়েই প্রশ্ন করা হয়েছে। ফলে এই ধরনের ঘটনা বলতে অস্বস্তি হয়নি। তবে এই শোয়ে তিনি ও রূপঙ্কর এসেছেন মেয়ের চাপে পড়ে। তাঁদের শখ-আহ্লাদ বিসর্জন মেনে নিতে পারেনি মহুল। সে মা-বাবাকে নিজের মতো করে বাঁচতে শিখিয়েছে।