Hoop PlusHoop TrendingTollywood

Dev: ক্ষমতার নেশায় মানুষ মানুষকেই চিনতে পারল না, রামপুরহাট হত্যাকান্ডে সরব দেব

এই মুহূর্তে রামপুরহাট হত্যাকান্ড নিয়ে উত্তাল রাজ্য-রাজনীতি। ইতিমধ্যেই কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে তদন্ত শুরু করেছে সিবিআই। একের পর এক সিসিটিভি ফুটেজ উঠে আসছে তদন্তকারী অফিসারদের হাতে। প্রশ্ন উঠছে তৃণমূল কংগ্রেস নেতা ভাদু শেখ (Bhadu Sheikh)-এর খুনের বদলা নিতেই কি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে রামপুরহাটের বগটুই গ্রামের একের পর এক বাড়ি? অপরদিকে শাসক দলের সমালোচনায় সরব হয়ে উঠেছে বিরোধী দল। অত্যন্ত অমানবিক এই ঘটনা নিয়ে এবার মুখ খুললেন অভিনেতা-সাংসদ দেব (Dev)।

এদিন দেব বলেন, যে ঘটনা ঘটেছে, তা অত্যন্ত খারাপ। এই ধরনের ঘটনা ঘটা উচিত নয়। কারণ এর ফলে ভারতীয় রাজনীতিতে পশ্চিমবঙ্গের নাম কলঙ্কিত হবে। ঈশ্বর ও সমস্ত সাধারণ মানুষের কাছে দেবের একটাই প্রার্থনা, ক্ষমতার নেশায় এমন না হয়ে যায় যাতে মানুষ মানুষকেই চিনতে পারল না। মিডিয়া ও সিবিআইয়ের হাতে প্রাপ্ত প্রথম সিসিটিভি ফুটেজ অনুযায়ী, 21 শে মার্চ রাত সওয়া আটটার একটু পরে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সামনে এসে দাঁড়ায় একটি অ্যাম্বুল্যান্স। ছুটতে ছুটতে হাসপাতালে ঢোকে তিন জন তরুণ। এরপরেই স্ট্রেচারে শুইয়ে হাসপাতালের এমার্জেন্সিতে ঢোকানো হয় তৃণমূল কংগ্রেসের পঞ্চায়েত উপপ্রধান ভাদু শেখকে। বোমায় আহত হয়েছিলেন তিনি।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Dev Adhikari (@imdevadhikari)

রাত আটটা বেজে উনিশ মিনিটে ওই তিন তরুণের পিছনেই এমার্জেন্সিতে ঢোকে দলে দলে লোকজন। এরপরেই হাসপাতালে ভাদু শেখের অনুগামীদের আনাগোনা শুরু হয়। রাত সাড়ে আটটা নাগাদ আবারও একদল ব্যক্তি হাসপাতালে ঢোকে। এর মধ্যেই ছিলেন ভাদু শেখের স্ত্রী ও একদল মহিলা। ইতিমধ্যেই দফায় দফায় লোক হাসপাতালে ঢুকতে ও বেরোতে থাকে।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by S Newz (@snewz.tv)

এরপরের সিসিটিভি ফুটেজ যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ যেখানে রাত আটটা বেজে আটত্রিশ মিনিটে ভাদু শেখের অনুগামীদের একটি বড় দল হাসপাতাল থেকে বেরোয়। রাত আটটা বেজে তেতাল্লিশ মিনিটে বেরোয় আরও একটি বড় দল। কিছুক্ষণের মধ্যেই স্ট্রেচারে শুইয়ে বার করে আনা হয় ভাদু শেখকে। এরপর রাত আটটা বেজে ছেচল্লিশ মিনিটে আরও একদল ব্যক্তিকে হাসপাতাল থেকে বেরোতে দেখা যায় যাঁদের মধ্যে ছিলেন রামপুরহাটের তৃণমূল বিধায়ক আশিষ বন্দ্যোপাধ্যায় (Ashish Banerjee)-র ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee) ওরফে সমু।

প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ, হাসপাতাল থেকে ফিরে ভাদু শেখের অনুগামীদের একাংশ বগটুই গ্রামে নির্বিচারে হামলা চালান। জ্বালিয়ে দেওয়া হয় একের পর এক বাড়ি। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি হাসপাতালের সিসিটিভি ফুটেজে ধরা পড়ায় তৈরি হয়েছে বিতর্ক। অথচ আশিষ বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতে, এই ঘটনার মাধ্যমে পুর-নির্বাচনকে প্রভাবিত করার চেষ্টা চলছে।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Uttarbanga Sambad (@uttarbangasambad)