চোখের জলে বাবাকে বিদায়, ভাইয়ের সঙ্গে শেষকৃত্য পালন করলেন ক্রিকেটার হার্দিক পান্ডিয়া

গত শনিবার আচমকা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছিলেন টিম ইন্ডিয়ার দুই তারকা অল-রাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়া এবং ক্রুণাল পান্ডিয়ার বাবা হিমাংশু পান্ডিয়া। মৃত্যুর সময়ে বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। বাবার হঠাৎ মৃত্যুর খবর পেয়ে সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফির মাঝপথ থেকে ঘরে ফিরতে হল ক্রুণাল পাণ্ডিয়াকে। এই টুর্নামেন্ট ম্যাচে বরোদার অধিনায়কত্ব করছেন বড় ছেলে। ইতিমধ্যেই তাঁর অধিনায়কত্বে তিনটি ম্যাচেই জয় পেয়েছিল বরোদা। কিন্তু বাবার প্রয়াণে খেলা থেকে পুরোপুরি বেরিয়ে আসতে হল ক্রুণালকে। অন্যদিকে হার্দিক চোট খাওয়াতে এমনিতেই এই টুর্নামেন্টে খেলেননি। তিনি ইংল্যান্ড সফরের জন্য প্রশিক্ষণে ছিলেন।

বাবার মৃত্যু দুই ছেলের কাছে খুব কষ্টের। রবিবার হার্দিক নিজের ইন্সটাগ্রামে নিজের বাবাকে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করে কয়েকটি ছবি শেয়ার করেছেন। লিখেছেন, প্রতিটি ছেলের তাঁর বাবাকে হারানো জীবনের অপূরণীয় ক্ষতি। বাবা ছিলেন তাঁর কাছে অনুপ্রেরণা। আজ যে জায়গায় তিনি পৌঁছেছেন, তার পুরো কৃতিত্ব হার্দিক দেন তাঁর বাবাকে। লিখেছেন, বাবা আমাদের অনেক ভালো মুহূর্ত উপহার দিয়েছিল। বাবার কথা মনে পড়লেই তাঁর হাসি মুখটা ভেসে উঠবে বারবার। আমার রাজা শান্তিতে থাক। তোমায় সবসময় মিস করবো।

গুজরাতের সুরাটে ছোট গাড়ির ব্যবসা ছিল হিমাংশু পান্ডিয়ার। কিন্তু দুই ছেলেকে ক্রিকেটার করবেন বলে সেই দোকান বেচে দিয়ে বরোদায় চলে আসেন তিনি৷ বরোদায় এসে অভাবের সংসারে প্রাক্তন ক্রিকেটার কিরণ মোরের অ্যাকাডেমিতে দুই ভাইকে ভর্তি করে দেন তিনি৷ ক্রিকেটার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর নিজেদের বাবার এই অবদান ভোলেননি। বার বার নিজেদের সাফল্যের পিছনে প্রত্যেক জায়গায় বাবার অবদানের কথা বলেছেন দুই ছেলে। শনিবার দুই ছেলের উপস্থিতিতে হিমাংশু পান্ডেয়ার শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়। এখন পান্ডেয়া বাড়ি বাবার মৃত্যুতে শোকাচ্ছন্ন। দুই ক্রিকেটারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন বিরাট কোহলি, শচীন তেন্ডুলকার।