Hoop Story

সম্পত্তির নিরিখে মুকেশ আম্বানিকে টেক্কা দেন তার জামাই, শ্বশুরবাড়িতে রানীর হালে জীবন কাটাচ্ছেন ঈশা

নিজের যশ প্রতিভা এবং সম্পত্তির কারণে আজকের সময়ে তারা শুধু ভারতে নয়, সারা বিশ্বে ধনী ব্যক্তিদের মধ্যে অন্যতম মুকেশ আম্বানি। মুকেশ আম্বানির আজকের সময়ে কোন কিছুর অভাব নেই, তিনি পৃথিবীতে যা কিছু আছে তা অবলীলায় অর্জন করতে পারেন। দুটি জিনিস মুকেশ আম্বানি তার জীবনে অঢেল অর্জন করেছেন। প্রথমটি হল অর্থ এবং দ্বিতীয়টি হল সম্মান। মুকেশ আম্বানির মোট সম্পত্তির পরিমাণ ইয়ত্তা করতে গেলে ঘন্টার পর ঘন্টা হিসেবে বসতে হবে।

গত কয়েক বছর আগে তিনি তার কন্যা ইশা আম্বানির বিবাহ মহাসমারোহের সঙ্গে দেন। বলাবাহুল্য ভারতের সবথেকে অভিজাত বিয়ে ছিল এটি। সেই বিয়ের আসরে প্রায় গোটা বলিউড উপস্থিত হয়েছিলেন। শোনা যায় সেই বিয়ের একটি কার্ডের আনুমানিক মূল্য ছিল প্রায় দেড় কোটি টাকা।

নিজের মেয়ের জন্য তো আর আম্বানি দেশে জামাই দেখবেন না। মুকেশ আম্বানির জামাতার অর্থ বল মুকেশ আম্বানির সমান না হলেও এক কথায় তিনি ধনকুবের। বিশাল সম্পত্তির একমাত্র মালিক তিনি। তার সম্পত্তির পরিমাণ জানলে বিস্ময়ে আপনার চোখ কপালে উঠবে।

মুকেশ আম্বানির জামাতা অর্থাৎ ঈশা আম্বানির স্বামীর নাম আনন্দ পিরামল। আনন্দ পিরামল ভারতের নামকরা একজন ব্যবসায়ী মধ্যে অন্যতম। ২০১৮ সালের ১২ই ডিসেম্বর রাজকীয় ভাবে ঈশা আম্বানি এবং আনন্দ পিরামলের বিবাহ জয়পুরে অনুষ্ঠিত হয়। নিজের একটিমাত্র কন্যার বিবাহের জন্য তিনি প্রায় ৭৫০ কোটি টাকা খরচ করেছিলেন।

আম্বানির জামাই আনন্দ পিরামল কোটিতে একজন, এর কারণ হল আজকের সময়ে আনন্দ পিরামল একজন বিলিয়নিয়ার এবং তাঁর এত টাকা আছে যে তিনি বিয়ের পরেও আম্বানির মেয়েকে কোনো কিছুরই অভাব হতে দেননি। রাজপ্রাসাদের মতো ঘরে রানী হালে রয়েছেন ঈশা আম্বানি।

মুকেশ আম্বানি একজন খুব বড় এবং সুপরিচিত ব্যবসায়ী যার নাম সারা বিশ্বের প্রতিটি আনাচে কানাচে একতরফাভাবে ছড়িয়ে গিয়েছে। মুকেশ আম্বানি কন্যা ইশা আম্বানি পিরামল পরিবারে পুত্রবধূ হয়ে প্রবেশ করেন, যে পরিবার ভারতের অন্যতম ধনী পরিবারের মধ্যে পড়ে। শ্বশুরবাড়িতে যে রানীর হলে তিনি দিন কাটান তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। সম্প্রতি, সোনার পোশাকে ঈশা আম্বানির একটি ছবি ভাইরাল হয়েছিল, যা স্পষ্টভাবে জানান দেয় যে তিনি কীভাবে বিয়ের পর তার জীবন কাটান। যদি এক বাক্যে বলা হয়, পিরামল পরিবারের পুত্রবধূ হওয়ার পর, ঈশা আম্বানি রানির মতো জীবনযাপন করছেন।