মাদক মামলায় জামিন পেলেন ভারতী সিং, মুখ খুললেন জনপ্রিয় কমেডিয়ান জনি লিভার

সোমবার কমেডিয়ান ভারতী সিংহ এবং তাঁর স্বামী হর্ষ লিম্বাচিয়ার জামিন মঞ্জুর করল আদালত। প্রায় দেড় দিন NCB-র হেফাজতে থাকেন এই দুই নবীন স্বনামধন্যা কমেডিয়ান। আগামী ৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত এই দুই কমেডিয়ান দম্পতিকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়। এরপরেই কৌতুক রানী ভারতীকে কল্যাণ জেলে এবং হর্ষকে তালোজা জেলে নিয়ে যাওয়া হয়।

উল্লেখ্য জনপ্রিয় কমেডিয়ান ভারতীর বাড়িতে আচমকা এনসিবি-র কর্মকর্তারা তল্লাশি চালায় এবং সেই বাড়ি থেকে গাঁজা উদ্ধারিত হয়। সূত্রের খবর অনুযায়ী সেই গাঁজার পরিমান ৮৬.৫ গ্রাম মতো। ঠিক এরপরেই এই দুই সুপরিচিত কমেডিয়ানকে গ্রেফতার করে এনসিবি। ভারতী সিংয়ের স্বামী হর্ষের উপর মাদকদ্রব্য আইন ১৯৮৬ এর ধারা 27A আরোপ করা হয়। রবিবার টানা ১৫ ঘণ্টা জেরা করা হয় হর্ষকে, এরপরেই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়।

আজ সোমবার আদালত ভারতী সিং এবং তাঁর স্বামী হর্ষ লিম্বাচিয়ার জামিন মঞ্জুর করে। সূত্রের খবর মাথাপিছু ১৫০০০ টাকার বন্ডে মাদক সংক্রান্ত বিশেষ আদালত এই দুই’জনের জামিন মঞ্জুর করেছে। যদিও এনসিবি সূত্রে তাঁদের বন্ডের ব্যপারে কোন উত্তর আসেনি।

জনি লিভার, যিনি ভারতে প্রথম স্ট্যান্ড আপ কমেডিয়ান হিসাবে পারফম করেন, তিনিও ভারতী সিং এর গ্রেফতারি প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন। একটি সংবাদমাধ্যমে তিনি বলেছেন, “যদি মাদকাসক্তির এই ধারা অব্যাহত থাকে, হামারি শিল্প খড়ব হো জায়েগী” এমনকি তিনি সঞ্জয় দত্তের উদাহরণ তুলে ধরেছেন। জনি লিভার এই ব্যপারে এই বলেন সঞ্জয় দত্ত যেমন নিজের ভুল স্বীকার করেছিলেন সেরকম এই দু’জনেরও জেল থেকে বেরিয়ে আসার পরে তাদের বন্ধুদের সাথে কথা বলা উচিত এবং তাদের সবাইকে মাদক সেবন না করার পরামর্শ দেওয়া উচিত।