Hoop PlusTollywood

‘এমএ ইংলিশ চায়েওয়ালি’ টুকটুকির পাশে দাঁড়ালেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত

ইংলিশে স্নাতকোত্তর করেছেন উত্তর চব্বিশ পরগনার হাবড়ার মেয়ে টুকটুকি দাস (Tuktuki Das)। কিন্তু চাকরির অভাবে হাবড়া রেলস্টেশনের দুই নম্বর প্ল্যাটফর্মে চায়ের দোকান খুলেছিলেন তিনি। নাম দিয়েছিলেন ‘এমএ ইংলিশ চায়েওয়ালি’। এই দোকানের মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়া সেনসেশন হয়ে উঠেছেন টুকটুকি। এই নামে তাঁর ইউটিউব চ্যানেল দ্রুত জনপ্রিয় হয়েছে। এবার তাঁর এক চিলতে চায়ের স্টল থেকে এই নামে একটি স্ন‍্যাকস ব্র্যান্ড খুলতে চান টুকটুকি। দরিদ্র কিন্তু মেধাবী মেয়ে টুকটুকির লড়াইয়ের কথা শুনে এবার তাঁর পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিলেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত (Rituparna Sengupta)।

ক্রমশ চায়ের সঙ্গে গরম সিঙাড়ার চাহিদাও বাড়ছে টুকটুকির টি-স্টলে। তাঁর লড়াইয়ের কাহিনী ইতিমধ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ঋতুপর্ণা টুকটুকির জন্য আনন্দিত ও গর্বিত। তাঁর মতে, টুকটুকি অনেকের কাছেই উদাহরণ হয়ে উঠেছেন। ঋতুপর্ণা মনে করেন, টুকটুকির মধ্যে ব্র্যান্ড তৈরি করার ক্ষমতা রয়েছে। সব কাজের শুরু শূন্য থেকেই হয়। ঋতুপর্ণার দৃঢ় বিশ্বাস, টুকটুকির শিক্ষার আলো তাঁকে এই কাজে শক্তি দেবে। অধ্যবসায় ও বিশ্বাসের জোরেই তাঁর ‘এমএ ইংলিশ চায়েওয়ালি’ ব্র্যান্ড অনেক বড় হবে। টুকটুকিকে অনেক ভালোবাসা জানিয়েছেন ঋতুপর্ণা।

সমাজে মেয়েদের স্বাধীন চিন্তা নিয়ে ঘুরে দাঁড়ানো ঋতুপর্ণাকে আনন্দ দেয়। তিনি মনে করেন, অর্থের থেকেও অধিক প্রয়োজন ভিতরের ইচ্ছাশক্তির। অপরদিকে ঋতুপর্ণার শুভেচ্ছার কথা জেনে উচ্ছ্বসিত টুকটুকি বললেন, ঋতুপর্ণার তাঁর স্বপ্নের মানুষ। তাঁর আশীর্বাদের হাত টুকটুকির মাথায় থাকলে তাঁর স্বপ্ন সফল হবেই। ঋতুপর্ণার কাছে তিনি কৃতজ্ঞ। নিজের নতুন দোকান খুলতে পারলে ঋতুপর্ণাকে আমন্ত্রণ জানাবেন টুকটুকি।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Rituparna Sengupta (@rituparnaspeaks)

মধ্যপ্রদেশের লাভরাবদা গ্রামের কৃষকের ছেলে ‘এমবিএ চায়েওয়ালা’ প্রফুল্ল বিল্লোর (Prafulla Billor) টুকটুকির অনুপ্রেরণা। প্রফুল্লও চায়ের স্টল খুলে ব্যবসায়ী হওয়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন। নিজের শিক্ষাগত যোগ্যতাকে দোকানের নামের সঙ্গে জুড়ে দেন তিনি। এই মুহূর্তে সারা দেশে তাঁর অনেকগুলি আউটলেট রয়েছে। অসংখ্য সহমর্মী মানুষের ভালোবাসা রয়েছে তাঁর সাথে। হাবড়ার বিধায়ক ও মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক (Jyotipriyo Mullick) টুকটুকিকে সবরকম সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। টুকটুকি তাঁর কাছে চাকরি না চেয়ে তাঁর ব্র্যান্ড প্রতিষ্ঠা করার জন্য সহযোগিতা চেয়েছেন। মন্ত্রীর তরফে কোলকাতা ও হাবড়ায় টুকটুকির জন্য নতুন দোকানঘরের সন্ধান চালানো হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button