Hoop Life

Lifestyle: এই পাঁচটি সহজ বাস্তু টোটকায় রোগব্যাধি ধারে কাছে আসতে পারবে না

বাস্তুশাস্ত্র আমাদের জীবনকে কিন্তু কয়েক লহমায় পাল্টে দিতে পারে। আমরা অনেকেই বিশ্বাস করিনা, ভাবি এই সব কুসংস্কার। কিন্তু বাস্তবে কোনো রকম কুসংস্কার নয় আমাদের পূর্বপুরুষের কাছ থেকে এই বিদ্যা চলে আসছে। অনেক আগে কে আগে ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যাবে, মহেঞ্জোদারো সভ্যতার নগর পরিকল্পনা করা হয়েছিল। তাহলে ভাবুন বাস্তু আমাদের জীবনের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি সারাক্ষণ রোগে ভুগতে থাকেন বা বাড়িতে যদি সব সময় অসুখ এর প্রকোপ বেশি থাকে, তাহলে অবশ্যই বাস্তুকে আপন করে নিন। রোগ মুক্তির উপায় জেনে নিন এই বাস্তুর মাধ্যমে।

১) বাস্তুবিদ্যা মনে করেন, শোওয়ার ঘরে কখনো নোংরা বা ও প্রয়োজনীয় জিনিস রাখতে নেই শোওয়ার ঘরে মানুষ ঘুমোতে যায়। কিন্তু যদি এখানে অপ্রয়োজনীয় জিনিস বা নোংরা জিনিস থাকে তাহলে কিন্তু নেগেটিভ শক্তি শোওয়ার ঘরে বেশি পরিমাণে চলে আসে। তাই পজিটিভ এনার্জিকে যদি রাখতে চান, অবশ্যই শোওয়ার ঘর ভালো করে পরিষ্কার করুন।

২) শোওয়ার ঘরে অবশ্যই খোলামেলা রাখতে হবে। জানলা বড় বড় থাকতে হবে। যেখানে আলো-বাতাস ভালো করে আসা যাওয়া করতে পারবে। শোওয়ার ঘর কখনোই অন্ধকার করতে নেই, এবং এই শোওয়ার ঘরে বিছানার সামনে কখনোই আয়না রাখা উচিত নয়, এতে কিন্তু আরো রোগ বৃদ্ধি ঘটে।

৩) শোওয়ার ঘরে কোন রকম ঠাকুরের মূর্তি রাখা উচিত নয়, এতে কিন্তু রোগের প্রকোপ অনেক বেশি বৃদ্ধি পায়।

৪) বাড়ির প্রবেশদ্বার এর সম্মুখে কখনো ময়লা, আবর্জনা বা গর্ত কাদা ইত্যাদি থাকা উচিত নয়, এতে কিন্তু পরিবারের যোগ বৃদ্ধি ঘটে।

৫) বাড়ির প্রবেশদ্বারে স্বস্তিক চিহ্ন রাখা উচিত। এতে বাড়িতে রোগ-বালাইয়ের প্রকোপ একেবারে দূর হয়ে যায়। বাড়ির ভেতরে পজিটিভ শক্তি যেতে পারে।