Hoop Story

Dadagiri: বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দিলেন সৌরভ গাঙ্গুলী, কবে থেকে শুরু হচ্ছে ‘দাদাগিরি ৯’!

প্রতি বছর জি বাংলায় ‘দাদাগিরি’-র একটি সিজন শেষ হলে অপর সিজন শুরুর অপেক্ষায় থাকেন আপামর বাঙালি। কারণ শোয়ের সঞ্চালক আর কেউ নন, বাঙালির প্রিয় ‘দাদা’ সৌরভ গাঙ্গুলী (Sourav Ganguly)। সৌরভের নিখাদ বাঙালিয়ানা বাড়িয়ে দেয় শোয়ের টিআরপি। এবার ‘দাদাগিরি’ আবারও ফিরছে, কিন্তু একদম অন্য রূপে।

করোনা অতিমারীর কারণে গত দুই বছর ধরে বিপর্যস্ত পৃথিবী। ডাক্তার ও নার্সদের বিরুদ্ধে একসময় মানুষের অভিযোগের শেষ থাকত না। এমনকি টিভির পর্দায় সংবাদের শিরোনামে প্রায়ই থাকত তাঁদের মারধর করার খবর। যা দেখে অনেক সাধারণ মানুষ বলতেন , ‘’ঠিক হয়েছে, এদের মারাই উচিত”। মেডিক্যাল পেশার সঙ্গে যুক্ত মহিলারা পরিবার ও চাকরির মধ্যে ব্যালান্স করতে হিমশিম খেতেন। এখনও তাঁদের শুনতে হয়, “কি এমন করো?”। কিন্তু করোনা অতিমারী চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল তাঁদের জীবনযাত্রা।

করোনা অতিমারীতে সমগ্র পৃথিবী লকডাউন হয়ে গেলেও কিছু পেশায় লকডাউনের কোনো চিহ্ন নেই। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন স্বাস্থ্যকর্মী, ডাক্তার, নার্স, পুলিশ, ডেলিভারি বয় এবং ডেলিভারি গার্ল প্রমুখ। যখন ভ‍্যাকসিন আবিষ্কার হয়নি, সেই সময় থেকে অক্লান্ত পরিশ্রম করে মেডিক্যাল পরিষেবা দিয়ে চলেছেন চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীরা। সারাদিন পিপিই কিট পরে, নিজেকে ভুলে, পরিবারকে ভুলে মানবসভ‍্যতাকে সুস্থ করতে নিবেদিত প্রাণ হয়ে গিয়েছেন তাঁরা। বহু চিকিৎসক ও নার্স করোনায় সংক্রামিত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন। ‘দাদাগিরি সিজন 9′ তাঁদের উদ্দেশ্যেই উৎসর্গীকৃত।

ইতিমধ্যেই ভাইরাল হওয়া প্রোমোতেও দেখানো হচ্ছে, জন্মদিনে উপস্থিত থাকতে পারেন না বাড়ির বৌমা। তাঁর শাশুড়ি কোনোদিন বোঝেননি বৌমার ব্যস্ততার কারণ। কিন্তু করোনা বিপর্যয় বুঝিয়ে দিল তাঁর বৌমার দশভুজা রূপ। শাশুড়ি বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দিলেন বৌমার প্রতি। এই কারণে ‘দাদাগিরি সিজন 9′-এর ট‍্যাগলাইন ‘হাত বাড়ালেই বন্ধু হয়’। খুব শীঘ্রই জি বাংলায় সম্প্রচারিত হতে চলেছে ‘দাদাগিরি সিজন 9’। একই সঙ্গে এই শো দেখা যাবে জি ফাইভ অ্যাপেও।

Related Articles

Back to top button