Hoop PlusTollywood

Yash Dasgupta: হৃদরোগে প্রয়াত হলেন যশ দাশগুপ্তের মা, শোকের ছায়া অভিনেতার পরিবারে

মায়ের মৃত্যুতে শোকসন্তপ্ত যশ দাশগুপ্ত। অভিনেতার পরিবারের সকলেই ভেঙে পড়েছেন তার মায়ের অকালমৃত্যুতে। তাদের এই কঠিন সময়ে সকলের কাছে প্রার্থনা করেছেন তাদের যেন নিভৃতে থাকতে দেওয়া হয়। এই সময় তাদের মানসিক শান্তির একান্ত প্রয়োজন। মাকে হারিয়ে তিনি ভয়ানকভাবে বিধ্বস্ত। তার জীবনে মায়ের গুরুত্ব অপরিসীম অভিনেতা নিজেই জানিয়েছেন বহুবার।

তার মার গুরুত্ব তার জীবনে অনেকখানি। জীবনে তার মায়ের জায়গা কোনদিনও কেউ নিতে পারবেন না। প্রতিটি পদক্ষেপে মা পাশে ছিলেন ঢাল হয়ে। রবিবার রাতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন জয়তী দাশগুপ্ত। দীর্ঘদিন ধরে কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি। শহরের এক বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি ছিলেন। গত রবিবার রাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হন জয়তী দাশগুপ্ত। হাসপাতালেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

মায়ের ছবি পোস্ট করে একবার যশ লিখেছিলেন আমি মনে করি নারী দিবস নিয়ে কথা বলার জন্য খুবই ছোট কিন্তু একজন নারী হলেন এমন একজন যিনি আমাদের জন্মের সময় থেকেই আমাদের লালন-পালন করেন, আমাদের মূল্যবোধ শেখান, বিশ্বের মুখোমুখি হতে, চ্যালেঞ্জ নিতে এবং জীবনে কিছু হতে প্রস্তুত করেন। একজন পুরুষ হিসাবে একজন মহিলাকে বোঝা কঠিন কারণ তাদের মানসিকতার সাথে সম্পর্কিত করা আমাদের পক্ষে খুব সহজ নয়। কীভাবে একজন মহিলা এত যত্নশীল, এত সামঞ্জস্যপূর্ণ এবং কীভাবে তাদের প্রকৃতি সর্বদা দাতার হতে পারে।

যদিও এর অর্থ এই নয় যে তারা একটি নির্ভরশীল আত্মা। একজন মহিলা স্বাধীন এবং আত্মনির্ভরশীল এবং সবকিছু করতে সক্ষম। তাদের কাজ বাড়ির যত্ন নেওয়া, খাবার রান্না করা এবং যিনি তাদের পরিবারের জন্য রুটি উপার্জনকারী হতে পারে, ‘আপনি একজন মানুষকে শিক্ষিত করেন, আপনি কেবল একজন মানুষকে শিক্ষিত করেন। আপনি একজন নারীকে শিক্ষিত করুন এবং আপনি একটি প্রজন্মকে শিক্ষিত করুন। কন্যা সন্তান জন্ম দেওয়া পাপ নয় বরং এটি একটি আশীর্বাদ। আমাদের পুরুষদের বরং একজন মহিলার কাছ থেকে শেখা উচিত কীভাবে ভালবাসতে হয় এবং আমাদেরও তাদের অনুপ্রাণিত করা উচিত যেমন তারা আমাদের অনুপ্রাণিত করে। ঘরোয়া এবং পেশাদার উভয় ক্ষেত্রেই সমস্ত মহিলাকে স্যালুট এবং আরও ক্ষমতা। শুধু এটাই যে আমি আমার জীবনের নারীদের শুভ নারী দিবসের শুভেচ্ছা জানাতে খুব বেশি সোচ্চার নই তবে আমার হৃদয়ে আমি তাদের কাছে চির কৃতজ্ঞ আমার জীবনে থাকার জন্য এবং এটিকে আজকের মতো রূপ দেওয়ার জন্য।